আরবী পড়তে এসে ৪তলা ভবন ধসে নিখোঁজ ওয়াজেদ, মায়ের আহাজারি

2

জেলার খবরঃঃ নারায়ণগঞ্জ শহরের বাবুরাইল এলাকায় খালের ওপর ৪ তলা ভবন ধসে ওয়াজেদ (১২)নামে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর এক ছাত্র নিখোঁজ রয়েছে। ভবনটি ধসে নিহত সোয়েব (৬) নামে আরেক শিশু সাথে আরবী পড়তে পাশের বাসা থেকে ওই ভবনে আসে সে। ঘটনার পর থেকে নিখোঁজ সন্তানের জন্য মা কাকলীকে ঘটনাস্থলে আহাজারি করতে দেখা যায়।

রোববার বিকেলে ভবনটি ধসের পর ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে দেয়াল ভেঙ্গে ভেতরে ঢুকে ও পানিতে নেমে ডুবুরিরা তল্লাসী চালিয়েও রাত ৯ টা পর্যন্ত তার সন্ধান পাননি।

রোববার (৩ নভেম্বর) বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে পৌরসভার বাবুরাইল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এলাকাবাসীর অভিযোগ, পৌরসভার বাবুরাইল এলাকার রউফ মিয়ার চার ছেলে মিলে খালের উপর ভবনটি নির্মাণ করে। নির্মাণের সময় ঠিকমত পাইলিং না করায় ভবনটি ধসে পড়েছে। ভবনের নির্মাণের সময় তাদের বাববার নিষেধ করা হলেও তারা কারো কথা শোনেনি।

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক আব্দুল্লাহ আরেফিন জানান, ভবনের ভেতরে বেশ কয়েকজন আটকা পড়েছে বলে খবর পেয়েছি। ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা তাদের উদ্ধারে কাজ করছে।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে নাসিকের প্যানেল মেয়র আফসানা আফরোজ, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিকসহ বিপুল সংখ্যক আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান, বিকালে শিউলি ও শাহজাহান নামে ভাই বোনের নির্মাণাধীন ভবনটি পাশের খালের ওপর ধসে পড়ে। এ ঘটনায় একজনের মৃত্যু হয়েছে।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদা বারিক জানান, এক শিশু নিহত হয়েছে এবং ৪ জন শিশু আহত হয়েছে বলে জানতে পেরেছেন। তবে হতাহতদের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি। তিরি জানান, আরও এক শিশু নিখোঁজ রয়েছে বলে একটি পরিবার দাবি করছে। আমরা সর্বাত্মকভাবে চেষ্টা করছি।

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের উপ সহকারী পরিচালক আবদুল্লাহ আরেফিন জানান, বিকাল ৪টায় হঠাৎ করে চার তলা নির্মাণাধীন একটি ধসে পড়েছে। ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম উদ্ধার কাজ শুরু করেছে।

পিবিএ