Header Border

ঢাকা, সোমবার, ৬ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২২শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (বর্ষাকাল) ৩০°সে
ব্রেকিং :
ফ্রান্স আরাফাত রহমান কোকো স্পোর্টিং ক্লাবের সমন্বয়কারী এম আলী চৌধুরীর সমন্বয়ে ৩১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি কার্যকরি কমিটি ও ১১ সদস্য বিশিষ্ট উপদেষ্টা কমিটির অনুমোদন করেন দুলদুল বারী। ঠাকুরগাঁয়ের পীরগঞ্জে টানা ভারী বর্ষণে আমন ধানের বীজ তলা পানির নিচে নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার একডালা ইউনিয়নের নিচ তালিমপুর গ্রাম থেকে কাঠালগাড়ি পর্যন্ত মাটির রাস্তা নির্মাণ করছেন গ্রামবাসীরা। সমাজের ধনী-গরীব মিলে নিজেরাই চাঁদা ভাঙ্গন করে প্রায় দুই কিলোমিটার মাটির রাস্তা নির্মাণ কাজ শুরু করেছেন। শুক্রবার, ২৬ জুন। ছবি : পিবিএ নাসিরনগরে সাংসদের হস্তক্ষেপে বাঁধ নির্মাণের চেষ্ঠা অব্যাহত নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার একডালা ইউনিয়নের নিচ তালিমপুর গ্রাম থেকে কাঠালগাড়ি পর্যন্ত মাটির রাস্তা নির্মাণ করছেন গ্রামবাসীরা। সমাজের ধনী-গরীব মিলে নিজেরাই চাঁদা ভাঙ্গন করে প্রায় দুই কিলোমিটার মাটির রাস্তা নির্মাণ কাজ শুরু করেছেন। শুক্রবার, ২৬ জুন। ছবি : পিবিএ মানুষ রাজনীতির কাঁদা ছোড়াছুড়ি পছন্দ করছে না ছোট ভাইয়ের ধারালো বড় ভাই খুন তালায় করোনা উপসর্গ নিয়ে মুদি ব্যবসায়ীর মৃত্যু রামুতে শুকনো মরিচের ব্যাগে ৪০ হাজার ইয়াবা রাণীনগরে গ্রামবাসীরা টাকা তুলে নির্মান করছেন মাটির রাস্তা

কানাইঘাট পৌরসভার  খেয়াঘাট  সুরমা নদীর পাড়ে  অবৈধ ভাবে মেশিনে ভাঙাছে পাথর

সিলেট ডেস্কঃ পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের ২০০৬ সালের বাংলাদেশ গেজেট-এর অতিরিক্ত ১১ নম্বর উপবিধি (১)-এ উল্লেখ আছে, আবাসিক এলাকার শেষ সীমানা হতে ৫শ’ মিটারের মধ্যে ইট বা পাথর ভাঙার মেশিন ব্যবহার করা যাবে না। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রীর কঠোর নির্দেশনা রয়েছে, নদীর তীরে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের। তবে এর কোনটাই মানা হচ্ছে না সিলেট জেলার কানাইঘাট পৌরসভার  খেয়াঘাট  সুরমা নদীর পাড়ে ।নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে অন্তত ২০ মিটার দূরত্বে বাসাবাড়ি থাকার পরও স্থানীয় প্রভাবশালীরা নদীর তীর দখল করে সেখানে স্থাপন করেছে পাথর ভাঙার মেশিন। মেশিন চালুর পরই থরথর করে কাঁপছে বাড়ি ঘর । এতো কিছুর পরও এসব দেখার যেন কেউ নেই।

সিলেটের কানাইঘাট পৌরসভার  খেয়াঘাট  সুরমা নদীর পাড়ে ও মুলাগুল  বাজার এলাকায় অবৈধ ভাবে বিকট শব্দে পাথর ভাঙার শুরু করেছে প্রায় শতাধিক  মেশিন। ফলে ওই অঞ্চলের পরিবেশ-প্রকৃতি ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে।

 

সরেজমিন ঘটনাস্থল গিয়ে দেখা গেছে,  একেবারে বীজের ও নদীর তীর ঘেঁষে প্রকাশ্যে  মেশিন চলছে। পাথর ভাঙার শব্দ দূষণ ও ধুলোয় গোটা এলাকার লোকজনের স্বাস্থ্য মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে আছে। বিশেষ করে এলাকায় শিশু, গর্ভবতী নারী ও বয়স্ক লোকজনের শ্রবণ ইন্দ্রিয়তে মারাত্মক প্রভাব পড়ছে। পাথর ভাঙার মেশিনে যে শব্দ হয়, তা মানুষের স্নায়ূর উপরে মারাত্মক ক্ষতিকর চাপ তৈরি করে। এবং এখান থেকে ভাঙ্গা পাথর ট্রাক ও ট্রলি করে দেশের বিভিন্ন জায়গায় পাঠানো  হয়। এতে অতিরিক্ত পাথর নিয়ে ট্রাক ও ট্রলি যায়াতের কারণে রাস্তাঘাট ভেঙ্গে গিয়ে বিভিন্ন জায়গায় বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

 

 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ২-৩ মাস ধরে অবৈধভাবে  মেশিন বন্ধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা দেখা গেলেও এখন আর দেখা যায় না। তাই প্রকাশ্যে পাথর ভাঙার মেশিন চলছে।

 

কানাইঘাট থানায় অফিসার ইনচার্জ হিসাবে শামসুদ্দোহা পিপিএম   বলেন, যদি কেউ অভিযোগ দেন তাহলে আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেয়া হবে। এছাড়াও এ বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

 

যোগাযোগ করা হলে কানাইঘাট পৌরসভার মেয়র মো. নিজাম উদ্দিন বলেন, এ ধরনের পাথর ভাঙার মেশিন অবশ্যই পরিবেশ দূষণকারী। তবে তা প্রতিরোধে এককভাবে কিছু করার থাকে না। এখানে পরিবেশ অধিদফতরসহ আইনপ্রয়োগকারী সংস্থাগুলোরও ভূমিকা রয়েছে।

 

এবিষয়ে জানতে চাইলে কানাইঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদপুরে বারিউল করিম খান বলেন, পাথর ভাঙার কোনো অনুমতি এখানে নেই অবৈধ ভাবে যারা  পাথর ভাঙাছে  উপজেলা প্রশাসনের পক্ষথেকে অভিযান পরিচালনা করা হবে  ।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

যুবদল নেতা জাকি’র পিতা ও বিএনপি নেতা খালেদ জুবায়েরের মাতার মৃত্যুতে মিফতাহ্ সিদ্দিকীর শোক
তুরাগে অস্ত্রের উৎসের সন্ধ্যানে আইনশৃংখলা বাহিনী
করোনায় বিপাকে পড়েছে ‘রোহিঙ্গা’
ঝিনাইদহে গর্ভবতী মায়েদের স্বাস্থ্য সেবায় সেনাবাহিনী
দূর্গম পাহাড়ে বাড়ি বাড়ি ত্রাণ পৌঁছে দিচ্ছে সেনাবাহিনী
বিএনপি ৫৬ লাখ পরিবারকে ত্রাণ দিয়েছে : টুকু

আরও খবর

Design & Developed BY: WEB DESIGN BD