শিরোনাম:

অতি চেনা দৃশ্য দুপুর বেলা। সূর্যটা যেন আগুন ঝরাচ্ছে।

           
আজকের কাগজ ২৪ ডেস্ক
প্রকাশিত : এপ্রিল ২৯, ২০২২

এম এ আলম সাংবাদিক।

আজ দুপুর বেলা গ্রামের বাড়িতে সড়ক ধরে হেটে চলেছি। কিছুদূর যেতেই চোখ পড়লো একদল শিশু কিশোরের দুরন্তপনা। তারা ঝিলের পানিতে লাফিয়ে পড়ছে আর উঠছে। কেউ কেউ আবার সাঁতার কাটছে।তবে এসব শিশুদের অনেকেই একেবারে উদম গায়ে। কারো মধ্যে লজ্জা বা জড়তা কিছুই নেই। যেন তারা স্বর্গীয় আনন্দে মেতে আছে। আমি যখন ক্যামেরা দিয়ে ছবি তোলার চেষ্টা করতেই অনেক লজ্জায় ঝিলের পানিতে লাফিয়ে পড়ে। সেখান থেকে না আসা পর্যন্ত তাদের কেউই পানি থেকে উঠলো না।
তাহাদের কাছ থেকে আরও জানতে পারি তারা অনেকেই স্কুলে লেখাপড়া করে। তবে গোসলে করতে নেমে এভাবে খুব গরম লাগলেই তারা ঝিলের পানিতে নেমে পড়ে। ঘন্টা খানেক পানিতে লাফ-ঝাঁপ, হইহুল্লোড় করে রোদে গা শুকিয়ে তারপর বাড়িতে ফেরে। আমরা যারা গ্রামে ছোটবেলা কাটিয়েছি তাদের কাছে এটা অতি চেনা দৃশ্য। পুকুর বা নদীতে গরমের দিনে স্কুল থেকে ফিরেই দৌড়। কলা গাছের ভেলায় চড়ে সাঁতার কাটা, কখনো কলস দিয়ে সাঁতার কাটা হত। পানিতে থাকতে থাকতে চোখ লাল করে বাড়ি যখন ফেরা হত তখন ভয়ে ভয়ে থাকতাম এই বুঝি মা ধরে ফেলল। হয়তো দু’টো চড় কষিয়ে দিবে না হয় কান মলা। এভাবেই গরমের দুপুর বেলা পার হয় গ্রামের সকল শিশু-কিশোরদের। আবার
বেশিক্ষণ পানিতে থাকলে যে সর্দি-কাশি হবে এটা জেনেও দুরন্ত আনন্দে মেতে উঠতে পিছপা হয় না কেউ। চোখ লাল করে, কানে পানি ঢুকে যাওয়ার পরেও এই দোড় ঝাঁপ থেকে দূরে থাকে না। শৈশব-কৈশোরের এ উল্লাস যেন আনন্দের বাঁধভাঙ্গা জোয়ার।

� পূর্ববর্তী সংবাদ পরবর্তী সংবাদ �
Hosting
সর্বশেষ সংবাদ
  • সর্বাধিক পঠিত