নিউজ ডেস্কঃ
আজ : ১৭ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১লা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, রবিবার প্রকাশ করা : এপ্রিল ৬, ২০২১

  • কোন মন্তব্য নেই

    যুক্তরাজ্যে লকডাউন প্রত্যাহার হচ্ছে ১২ এপ্রিল

    সোমবার (১২ এপ্রিল) থেকে লকডাউন তুলে নেবে যুক্তরাজ্য। ওইদিন থেকে দেশটিতে রেস্টুরেন্ট, সব ধরনের দোকান, জিম এবং সেলুন খোলা থাকবে।

    স্থানীয় সময় সোমবার ডাউনিং স্ট্রিটে এক ব্রিফিংয়ে এ কথা জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরিস জনশন।

    একই সঙ্গে বরিস জনশন বলেছেন, ‘কিন্তু আমাদের খুব বেশি আত্মতুষ্টিতে ভোগার সুযোগ নেই।’

    এর ফলাফল কী হয় সেটি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হবে এবং সম্ভব হলে ১৭ মে থেকে যুক্তরাজ্য আন্তর্জাতিক যোগাযোগও স্বাভাবিক করতে চায় বলে তিনি জানিয়েছেন।

    যদিও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নতুন করে করোনার ক্রমবর্ধমান সংক্রমণ দেখা যাচ্ছে। এর প্রেক্ষিতে দেশটি বাংলাদেশসহ বেশ কিছু দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে।

    দেশটি নাগরিকদের জন্য করোনা সার্টিফিকেট ইস্যু করতে যাচ্ছে। এর মাধ্যমে একজন ব্যক্তি টিকা নিয়েছেন বা করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ ফলাফল এসেছে বা প্রাকৃতিকভাবেই তার মাঝে প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে উঠেছে কি না, তা জানা যাবে।

    তবে দেশটির অন্তত ৪০ জন সংসদ সদস্য এ সার্টিফিকেটের বিরোধিতা করে চিঠি দিয়েছেন।

    সম্প্রতি এক বিজ্ঞপ্তিতে দেশটির কর্তৃপক্ষ বলেছে, এখনও নিশ্চিত নয় যে ১৭ মে থেকেই আন্তর্জাতিক যোগাযোগ স্বাভাবিক করা যাবে। একই সঙ্গে তারা নাগরিকদের গ্রীষ্মকালীন ভ্রমণ প্যাকেজ কনফার্ম না করারও পরামর্শ দিয়েছে। চলতি সপ্তাহের শেষ দিকে এ নিয়ে আরও নিশ্চিত নির্দেশনা দেয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

    পিবিএ/জেডএইচ

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *




    • পাকিস্তানে বিলাসবহুল হোটেলে হামলা, তালেবানের দায় স্বীকার

    • যুক্তরাষ্ট্রে ১৫০ মাইল বেগে ঘূর্ণিঝড় আইডার আঘাত

    • সোমালিয়ায় আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণে নিহত ১৫

    • ক্রমেই ভয়াবহ আকার ধারণ করছে ভারতের করোনা পরিস্থিতি। এই মুহূর্তে রাজধানী দিল্লিতে মৃতদেহ সৎকারের জায়গা পর্যন্ত নেই বলে জানা গেছে ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে। দেখা যাচ্ছে, সাধারণত দিল্লিতে যত সংখ্যক মৃতের সৎকার হয়ে থাকে, তার থেকে বহুগুণ বেশি মৃতদেহ রোজ আসছে শ্মশান ও কবরস্থানে। গত ১০ দিনে এমনই ঘটনার সাক্ষী দিল্লি। এ পরিস্থিতিতে মৃতদেহ দাহ করার কাঠ ফুরিয়ে গেছে বহু শ্মশানে। কাঠের অভাবে কেয়ারটেকারকে বাধ্য হয়ে বন্ধ করে দিতে হয়েছে শ্মশানের দরজা। দিল্লির রাস্তায় লোক নেই। মন্দির, মসজিদ, গির্জাও সেভাবে ভর্তি নয়। জনসমাগম শুধুই হাসপাতালগুলোতে। আর সেখান থেকে বেরিয়ে আসা একের পর এক মরদেহ সৎকারে হয়রানি, ভোগান্তি সাধারণ মানুষের। এমনই দাবি করছে বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমের রিপোর্টে। করোনার জেরে শ্মশানের জন্য জমি বাড়াতে হচ্ছে দিল্লিতে। আরও ৫০টি নতুন প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা হয়েছে সৎকারের জন্য। অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্নে ছাড় পাচ্ছে না পার্কিং লটগুলো। দিল্লির গাজীপুরে এমনই পার্কিং লটে চিতা জ্বালানোর বন্দোবস্ত করা হচ্ছে। যে হারে করোনায় দিল্লিতে মৃত্যু মিছিল অব্যাহত রয়েছে, তাতে পরিস্থিতি ক্রমাগত ভয়াবহ হচ্ছে। শুধু কবরস্থান নয়, মৃত্যুর চাপে একই পরিস্থিতি শ্মশানেই। সেখানেও চিতার আগুন নিভছে না। আরও চিতা রাখার জন্য জায়গা তৈরি করা হচ্ছে। ২০ হাজারের ওপর করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দিল্লির নিত্যদিনের ঘটনা এখন। এই পরিস্থিতিতে মৃতের সংখ্যা ৩৫০ র আশপাশে প্রায় প্রতিদিনের পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে।

    © স্বত্ব আজকের কাগজ ২৪ ডট নেট ।২০১৮-২০২১
    সম্পাদক ও প্রকাশক: কামরুল হাসান চৌধুরি
    পিয়াস বিল্ডিং পূর্ব শাহী ঈদগাহ, টিবি গেইট , সিলেট
    ফোন: ০১৭১১০০০২১৪ , ইমেইল: ajkerkagoj24@gmail.com