নিউজ ডেস্কঃ
আজ : ১৫ই নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৩০শে কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, সোমবার প্রকাশ করা : মার্চ ২৪, ২০২১

  • কোন মন্তব্য নেই

    জুয়েলকে হত্যার ঘটনায়- তৎকালিন ইউএনওর বিরুদ্ধে দায়িত্ব অবহেলা অভিযোগ

    রংপুর ক্যান্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের সাবেক গ্রন্থাগারিক মো. সহিদুন্নবী জুয়েলকে (৫০) পিটিয়ে-পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার(ইউএনও) কামরুন নাহারের বিরুদ্ধে দায়িত্বে অবহেলা অভিযোগ তুলে তদন্তে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন জেলা প্রশাসক।

    বুধবার (২৪ মার্চ) দুপুরে বুড়িমারী ইউনিয়ন পরিষদ হলরুমে এ তদন্ত কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয় বলে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবু জাফর নিশ্চিত করেছেন। এর আগে গত বছরের ২৯ অক্টোবর বিকেলে পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে কোরআন অবমাননার গুজব ছড়িয়ে সহিদুন্নবী জুয়েলকে পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যা করা হয়।

    নিহত যুবক আবু ইউনুস মো. সাহিদুন্নবী জুয়েল রংপুর শহরের শালবন মিস্ত্রিপাড়ার আব্দুল ওয়াজেদ মিয়ার ছেলে। তিনি রংপুর ক্যান্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের সাবেক গ্রন্থাগারিক।

    গণবিজ্ঞাপ্তিতে বলা হয়, গত বছরের ২৯ অক্টোবর বিকেলে পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে কোরআন অবমাননার গুজব ছড়িয়ে সহিদুন্নবী জুয়েলকে পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। ওই সময়ের প্রাক্তন পাটগ্রাম ইউএনও কামরুন নাহারের(পরিচিতি নং- ১৭৪৬৭) দায়িত্ব ও কর্তব্যে অবহেলা ও অদক্ষতার অভিযোগের তদন্ত করা হচ্ছে।

    একই সাথে বিজ্ঞপ্তিটি ব্যাপক ভাবে প্রচার করতে পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভুমি) ও বুড়িমারী ইউপি চেয়ারম্যানকে অনুলিপি পাঠানো হয়েছে। জেলা প্রশাসকের জারি করা গণবিজ্ঞপ্তির পত্র পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সদ্য যোগদান করা পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) রাম কৃষ্ণ বর্মণ।

    লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবু জাফর বলেন, মন্ত্রপরিষদ বিভাগের নির্দেশনায় এ সিদ্ধান্ত তদন্ত শুরু হয়েছে। এটি একটি প্রশাসনিক তদন্ত।

    এ ঘটনায় নিহত জুয়েলের চাচাত ভাই সাইফুল আলম, পাটগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহজাহান আলী ও বুড়িমারী ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাঈদ নেওয়াজ নিশাত বাদী হয়ে হত্যাসহ পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনাস্থলের ভিডিও দেখে আসামি শনাক্ত করে অভিযান চালিয়ে এখন পর্যন্ত ৪৭ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার করা সবাই বুড়িমারী এলাকার বাসিন্দা।

    জাতীয় মানবাধিকার কমিশন ও জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি বুড়িমারীতে কোরআন অবমাননার কোনো সত্যতা পায়নি। গুজব ছড়িয়ে জুয়েলকে পিটিয়ে হত্যা ও পরে মরদেহ পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে বলেও উল্লেখ করেছেন দু’টি তদন্ত কমিটির সদস্যরা।

    পিবিএ/এমএসএম

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    © স্বত্ব আজকের কাগজ ২৪ ডট নেট ।২০১৮-২০২১
    সম্পাদক ও প্রকাশক: কামরুল হাসান চৌধুরি
    পিয়াস বিল্ডিং পূর্ব শাহী ঈদগাহ, টিবি গেইট , সিলেট
    ফোন: ০১৭১১০০০২১৪ , ইমেইল: ajkerkagoj24@gmail.com
    %d bloggers like this: