• মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৪৯ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

শাসকগোষ্ঠী দেশকে এক ব্যক্তির জমিদারিতে পরিণত করছে

Avatar
নিউজ ডেস্কঃ
আপডেট : মঙ্গলবার, ১৬ মার্চ, ২০২১

ঢাকা: বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনুসহ ছয় নেতার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা আওয়ামী দুঃশাসন ও মাফিয়াতন্ত্রের বহিঃপ্রকাশ বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেছেন, ‘সরকার ভীত হয়ে বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু, ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক ও রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, সহ-ত্রাণ ও পুনর্বাসনবিষয়ক সম্পাদক এবং রাজশাহী মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলনের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বানোয়াট রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা করেছে। এ মামলা আওয়ামী দুঃশাসন ও মাফিয়াতন্ত্রের বহিঃপ্রকাশ।’

মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ফখরুল এ মন্তব্য করেন। এসময় তিনি অবিলম্বে ছয় নেতার বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

মির্জা ফখরুল আরও বলেন, বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে এ মামলা মতপ্রকাশের স্বাধীনতার উপর কুঠারাঘাত। যেহেতু বাকশালী শাসনের পুনরুত্থান ঘটানো হয়েছে। সুতরাং মানুষের মৌলিক অধিকার সুরক্ষার শেষ চিহ্নটুকুও তারা রাখবে না। বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ ছয় নেতার নামে মামলা দিয়ে এক গভীর চক্রান্তের দিকে সরকার এগুচ্ছে বলে জনগণ মনে করে। বর্তমান শাসকগোষ্ঠী বাংলাদেশকে এক ব্যক্তির জমিদারিতে পরিণত করতে চাচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশের গণতন্ত্রকামী আপামর জনতা তাদের এই দুঃস্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে দেবে না।’

সরকার নির্যাতনের সকল রেকর্ড অতিক্রম করছে অভিযোগ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, বিরোধী দলকে হয়রানি করার জন্য হামলা, গ্রেফতার ও মামলা দিয়ে সয়লাব করে দিয়েছে আওয়ামী সরকার। তাদের একমাত্র উদ্দেশ্য হচ্ছে জনগণের পক্ষে যেন কেউ কথা না বলে। এই সমস্ত মামলার লক্ষ্যই হচ্ছে বিরোধী দলকে এক রকম বন্দি করে রাখা। শুধু মিথ্যা মামলাই দায়ের করছে না, গ্রেফতার করে রিমান্ডের নামে যে অমানুষিক নির্যাতন করছে তা সকল রেকর্ডকে অতিক্রম করেছে। তার জলজ্যান্ত প্রমাণ হচ্ছে লেখক সাংবাদিক মুশতাকের মৃত্যু।

তিনি বলেন, সন্ত্রাস আর ত্রাসের উপর নির্ভর করেই সরকার টিকে আছে। তাদের আর অন্য কোনো ভিত্তি নেই। জনগণ অনেক আগেই তাদের কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আওয়ামী সরকারের ব্যক্তিগত লাঠিয়াল বাহিনীতে পরিণত হওয়ার কারণে শুধুমাত্র বিরোধী দল নিপীড়নের শিকার হচ্ছে না। পুরো জাতি যে কোনো মুহূর্তে উৎপীড়ন ধেয়ে আসতে পারে এমন আশঙ্কার মধ্যে দিনাতিপাত করছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বাংলাদেশের যে কোনো শহরেই বিএনপর সমাবেশ অনুষ্ঠিত হলেই মনে হয় যেন কারফিউ বিরাজ করছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পথে পথে বাধা সৃষ্টি করে। এতো প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও লাখ লাখ মানুষ বিএনপির সভা-সমাবেশে উপস্থিতি হয়। আর সেজন্য সরকারের মনে দাউ দাউ করে প্রতিহিংসার আগুন জ্বলে। এ কারণেই বিএনপি নেতাদের নামে বানোয়াট রাষ্ট্রদ্রোহী মামলা দিয়ে তাদেরকে ধ্বংস করার নীল নকশা করেছে সরকার।

ফখরুল আরও বলেন, অতীতের ন্যায় সংগ্রামের মাধ্যমে সংগ্রামী জনতা তাদের মৌলিক অধিকার ফিরিয়ে আনবে এবং দেশকে আওয়ামী দুঃশাসন মুক্ত করবে। আমি অবিলম্বে বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে দায়ের করা বানোয়াট ও অসৎ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবি জানাচ্ছি।

পিবিএ/জেডএইচ


এই বিভাগের আরো খবর

নামাজের সময় সূচীঃ

সেহরির শেষ সময় - ভোর ৪:১২ পূর্বাহ্ণ
ইফতার শুরু - সন্ধ্যা ৬:২৬ অপরাহ্ণ
  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৪:১৭ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:০১ অপরাহ্ণ
  • ৪:৩০ অপরাহ্ণ
  • ৬:২৬ অপরাহ্ণ
  • ৭:৪৩ অপরাহ্ণ
  • ৫:৩৩ পূর্বাহ্ণ