স্বাস্থ্য-চিকিৎসা

স্তন ক্যান্সার(Breast cancer) লক্ষণ ও করণীয়

স্বাস্থ্য-চিকিৎসা: মিসেস সালেহা,বয়স -৫৫বছর।একটি সরকারী বিদ্যালয়ের শিক্ষক।তিনি কিছুদিন যাবত প্রচন্ড অস্বস্তিতে আছেন।কাউকে বলতে পারছেন না।ওনার সন্তান নেই,তাই তাদের সাথে কথা বলার উপায় নেই।স্বামী কে বলবেন,তাও বলতে পারছেন না।ওনার বাম স্তনে প্রায় বছর খানেক ধরে চাকা।ওটা এখন দ্রুত বড় হচ্ছে।ব্যথা নেই।তাই এতদিন পাত্তা দেননি।কিন্তু এটা ঠিক হয়ে যাচ্ছেনা।এখন আবার বাম বগলেও চাকা মত মনে হচ্ছে।ওনার ভয় লাগছে….অনেক সাহস করে পরিশেষে ডাক্তারের কাছে।ওনাকে পরীক্ষা করে ডাক্তার যা বললেন তার সারমর্ম হল-
ওনার বাম স্তনে ক্যান্সার।এতদিন দেরী করে আসার জন্য ওটা বেশ ছড়িয়ে গেছে।বর্তমানে উনি কেমোথেরাপী নিচ্ছেন….

এটা খুব নিত্তনৈমিত্তিক চিত্র।সামাজিক কারণে নারী রা নিজেদের সমস্যা বলেন না।একদম না সহ্য করতে পারা পর্যন্ত অপেক্ষা করেন।ফলাফল স্বরুপ উপরোক্ত চিত্র…

স্তন ক্যানসার কি???

যখন স্তনের বিভিন্ন অংশে কোষগুলোর অস্বাভাবিক বৃদ্ধি হতে থাকে ও চাকা তৈরী হয়,তাই হল স্তনের ক্যান্সার।

কাদের হয়??

-(৩৫-৪০) বছরের উর্ধে যে কোন নারী
-পুরুষ(৫% এর চেয়ে কম সম্ভাবনা)
-তবে এটি যেকোন বয়সেই হতে পারে(no age is immune)

কারণ কি?

-পরিবারে কারও স্তন ক্যানসার এর ইতিহাস থাকলে
-খাদ্যাভ্যাস-যেমন তেল-চর্বি জাতীয় খাবার,কম আঁশযুক্ত খাবার ইত্যাদি
-মদ্যপান
-যেসব নারীর সন্তান নেই
-সন্তান থাকলেও তাকে বুকের দুধ খাওয়ায়নি
-১ম সন্তান বেশি বয়সে হওয়া
-মাসিক অনেক কম বয়সে শুরু হওয়া ও বেশি বয়সে শেষ হওয়া
-মোটা/স্হূলকায় নারী
-দীর্ঘদিন ধরে জন্মবিরতীকরণ বড়ি খাওয়া
-দীর্ঘদিন ধরে হরমোন রিপ্লেসমেন্ট চিকিৎসা নেওয়া
-জেনেটিক কারণ
-পূর্বে কোন কারণে রেডিও থেরাপী নেয়া ইত্যাদি

উপসর্গ কি কি?

-স্তনে চাকা,সাধারণত ব্যথাবিহীন
-বগলে চাকা
-নিপল্ ভিতরে ঢুকে যাওয়া
-নিপল্ থেকে রক্ত পড়া
-স্তনের চামড়া কমলালেবুর খোসার মত হয়ে যাওয়া
-নিপল্ এ একজিমার মত ক্ষত যেটা চিকিৎসা করার পরও ঠিক না হওয়া
-চাকা তে আলসার হয়ে পঁচে যাওয়া
-ক্যান্সার ছড়িয়ে গেলে-কাশি,কাশির সাথে রক্ত,জন্ডিস,
হাড়ে ব্যথা ইত্যাদি।

কিভাবে রোগনির্ণয় সম্ভব??

-প্রতিমাসে নিজ স্তন পরীক্ষা করা
-ম্যামোগ্রাফি/আলট্রাসনোগ্রাম
-চাকা থেকে FNAC/বায়োপসি

শরীরের আর কোথায় ছড়াতে পারে?

-ফুসফুস
-লিভার
-হাড়
-অপরপাশের স্তন
-বগলে

আগে থেকে জানা সম্ভব???

-ব্রেস্ট স্ক্রিনিং এর মাধ্যমে
-এর মাধ্যমে ক্যান্সার খুব প্রথমিক অবস্হায় সনাক্ত করা যায়
-সাধারণত ৫০-৬৪ বছরের নারীদের প্রতিমাসের নির্দিষ্ট সময়ে নিজ স্তন পরীক্ষা করা
-প্রতি ২-৩ বছর অন্তর স্তনের এক্স-রে করার মাধ্যমে স্ক্রিনিং করা হয়
-এছাড়া যদি পরিবারে ব্রেস্ট ক্যান্সারের ইতিহাস থাকে তাদের পরীক্ষাগুলো আরও আগে থেকে শুরু করতে হবে।

চিকিৎসা পদ্ধতি

-অপারেশন
-কেমোথেরাপী
-রেডিওথেরাপী
-হরমোন থেরাপী
-ইমিউনোথেরাপী
-অপারেশন পরবর্তী পুনরায় স্তন তৈরী করা(reconstruction)

সম্পূর্ণ নিরাময় সম্ভব???

-যদি প্রাথমিক অবস্হায় ধরা পড়ে তাহলে সম্ভব
-রোগ ছড়িয়ে পড়লে চিকিৎসা সম্ভব তবে পূর্ণ নিরাময় না

চিকিৎসা পরবর্তী করণীয়:

-আজীবন ডাক্তারের ফলোআপে থাকা
-এটা খুবই জরুরী
-কারণ রোগ পুনরায় ফেরত আসলে দ্রুত ধরা পড়ে

স্তন ক্যানসার সহ অন্য যেকোন ক্যান্সার দিনদিন বেড়েই চলেছে।এর প্রতিকার,প্রতিরোধ খুবই জরুরী।জনসচেতনতা সৃষ্টি করা হচ্ছে বিভিন্ন মাধ্যম কর্তৃক।আপনারা নিজে সচেতন হোন ও অন্যকেও উৎসাহিত করুন।লজ্জা ভেঙ্গে দ্রুত ডাক্তারের কাছে আসুন।

Show More