জিহাদ বাবু’র ব্যাতিক্রমী উদ্যোগ: দশ টাকায় একটি বই!

24

আরফিন তৈয়ব , সন্দ্বীপঃঃ বই জগৎ’র সেই উপকরণ, যা একজন মানুষকে সহজেই আলোকিত করে তোলে। একেকটি বই একেকটি জানালা। শিক্ষার আলো, নীতি-নৈতিকতা-আদর্শ, ইতিহাস-ঐতিহ্য, কৃষ্টি-সভ্যতা, সাহিত্য-সংস্কৃতিসহ সকল জানালার সম্মিলিত জগৎ ‘বই’।

পৃথিবীময় অস্থির এক সময় পার করছে মানুষ, এই অস্থিরতার মাঝেই কেউ ভোলেনি নিজেকে। সমাজ সভ্যতা মানবিক স্থিরতা সবকিছুকে মাড়িয়ে প্রত্যেকে ব্যস্ত প্রত্যেককে নিয়ে। সুন্দর সম্প্রীতির আলোকিত সমাজ নিয়ে আলাপ-বিলাপ করলেও এসব নিয়ে উদ্যোগী নয় কেউ’ই! এর মাঝেও ব্যতিক্রম কিছু মানুষ থাকেন-আছেন যারা ‘আলোকিত’ সমাজের শুধু স্বপ্ন দেখেননা বাস্তবায়নেও সচেষ্ট থাকেন নিজের অর্থ শ্রম সময়ের বিনিময়ে, প্রচেষ্টা চালান একটি শুদ্ধ সুস্থ সম্প্রীতিময় আলোকিত সমাজ যাদের কাছে স্বপ্ন নয় একটি প্রয়োজনীয় বাস্তবতা।

খুবই ক্ষুদ্র পরিসরে সমাজের সে বাস্তবিক মানুষদের একজন সন্দ্বীপের ‘জিহাদ বাবু’। আলোকিত মানুষের সমাজ গড়ার প্রত্যয়ে ‘১০ টাকায় একটি বই’ ব্যতিক্রমী এই উদ্যোগ হাতে নিয়েছেন জিহাদ বাবু।

সন্দ্বীপ উপজেলার হারামিয়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডস্থ জমিরউদ্দিন মালাদার বাড়ির সার্জেন্ট (অবঃ) আনোয়ার হোসেন’র (প্রয়াত) কনিষ্ঠ সন্তান জিহাদ বাবু পেশায় একজন প্রকৌশলী। আছেন সক্রিয় রাজনীতিতেও, পালন করছেন সন্দ্বীপ উপজেলা ছাত্রলীগ’র ‘শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক’ এর দায়িত্ব।

‘দশ টাকায় একটি বই’ প্রকল্প প্রসংগে এর উদ্যোক্তা জিহাদ বাবু বাংলাধারা’কে জানান, সমৃদ্ধ হলেও আমরা একেবারেই প্রান্তিক একটি জনপদ যার জন্য শিক্ষা কিংবা বইপাড়া’র ক্ষেত্র যারপরনাই অপ্রতুল। পাবলিক লাইব্রেরী উপজেলা সদরে নামেমাত্র, লাইব্রেরী আছে কিন্তু নেই বই এবং এর বাইরে পাঠক থাকলেও নেই কোন লাইব্রেরী-শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর লাইব্রেরী নামে থাকলেও মূল উপকরণ বই আছে ‘শূন্য!’ বই বিক্রির লাইব্রেরী আছে তাও শুধুই পাঠ্যক্রমের নোট বা গাইড বই! অথচ আমাদের রয়েছে বিশাল একটি পাঠক প্রজন্ম। বইয়ের অপ্রতুলতা ও প্রাপ্তির অসুবিধার জন্য এই পাঠক প্রজন্ম পুরোপুরি বঞ্চিত হচ্ছে বই পাঠ হতে-বঞ্চিত হচ্ছে বই নামক আলো হতে। এরপর রয়েছে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা যারা চাইলেও একটি বই কিনে পড়ার মতো সচ্ছলতা থাকেনা অধিকাংশ শিক্ষার্থীদের। এসব বিষয় বিবেচনায় বইয়ের আলোয় আলোকিত হতে ইচ্ছুক প্রজন্মের প্রতি দায়িত্ব ও কর্তব্য বোধ হতেই আমার এই ক্ষুদ্র উদ্যোগ।

তিনি আরো বলেন, আমার বিশ্বাস সকলের সহযোগিতায় বইয়ের আলো ছড়িয়ে দিতে পারবো সবখানে এবং এরই তাগিদে আমার এই উদ্যোগ “দশ টাকার বিনিময়ে একটি বই’ মূলত একটি প্রকল্পের মত, দশ টাকায় এক সপ্তাহের জন্য একটি বই নিতে পারবেন যে কেউ,পরবর্তীতে পূনরায় সেই বই ফেরত দিয়ে আরেকটি বই নিতে পারেন। পাঠক দের থেকে পাওয়া দশ টাকা দিয়ে একটি তহবিল করা হচ্ছে, সেই তহবিল থেকে কেনা হবে আরো নতুন বই।
তা ছাড়া বিভিন্ন মাধ্যম থেকে বই সংগ্রহ করা হয়,অনেকের পুরাতন বই সংগ্রহ করা হয়।আপাতত কোন নিদিষ্ট জায়গা নেই,ভ্রাম্যমাণ হিসেবে কার্যক্রম শুরু হয়েছে, এবং যে যেখান থেকে ডাকছেন সেখানে গিয়ে বই পৌঁছে দিচ্ছি।

এটি সৃষ্টির মূল উদ্দেশ্য ছিল পিছিয়ে পড়া তারুণ্যের অবক্ষয়ের থেকে মুক্ত করা, পাশাপাশি অসম্প্রদায়িক চেতনায় উদ্ভুদ্ধ করে সৃজনশীল প্রজন্ম গড়ে তোলা।সন্দ্বীপের মত জায়গায় কাজ করা কিছুটা কঠিন হলেও ভাল সাড়া পাওয়া যাচ্ছে তরুণদের। ফেসবুকে আমাদের একটি গ্রুপ আছে, যার নাম ‘দশ টাকার বিনিময়ে একটি বই’। আপাতত এই গ্রুপ থেকে কার্যক্রম চালানো হচ্ছে।”

‘দশ টাকায় একটি বই’ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে উত্তর সন্দ্বীপ কলেজ’র শিক্ষক সিরাজ মোহাম্মদ বলেন, অস্কার ওয়াইল্ড তো বলেছেন’ই ‘একজন মানুষ ভবিষ্যতে কী হবেন সেটি অন্য কিছু দিয়ে বোঝা না গেলেও তার পড়া বইয়ের ধরন দেখে তা অনেকাংশেই বোঝা যায়।’

তিনি আরো বলেন, আলোকিত দেশ জাতি গঠনে প্রয়োজন সুস্থ স্বাভাবি ও মানবিক বোধ সম্পন্ন প্রজন্ম আর এই প্রজন্ম গড়ে তুলতে পারে বই, আমাদের মতো প্রান্তিক অঞ্চলে জিহাদ বাবু’র চিন্তা এবং কর্ম সন্দেহাতীতভাবে সমর্থন ও দারুণ প্রশংসার দাবী রাখে। জিহাদ বাবু’র ‘দশ টাকায় একটি বই’ একটি সুন্দর সৃজনশীল কর্ম। শিক্ষা বিষয়ক তাঁর এই পরিকল্পনা ক্ষুদ্র পরিসরে হলেই এটি বিশাল ভাবনা-প্রভাব সূদুর আগামী। সন্দ্বীপ উপজেলা ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে মেধাবী আধুনিক প্রগতিশীল কর্মীদের অন্যতম জিহাদ বাবু ইতোমধ্যে তাঁর মেধা ও চিন্তার বিশালতার পরিচয় নিশ্চিত করেছেন কর্মের মাধ্যমে, তাঁর প্রতি শুভেচ্ছা ও শুভকামনা রইলো।

‘দশ টাকায় একটি বই’ এর সদস্য এবং পাঠক জাবেদ হোসেন জানান, মাত্র ১০ টাকায় হুমায়ুন আজাদ’র নারী বইটি পড়ার সুযোগ হয়েছে। ‘নারী’ বইটির মূল্য ২শত ৫০ টাকা যা সন্দ্বীপ হতে কিনে পড়া সম্ভব ছিলোনা। খুবই ভালো লাগছে যে, মাত্র ১০ টাকায় এমন কিছু বই পড়া যায় যা পুরো মূল্যে কিনে পড়া অনেকের পক্ষেই সম্ভব নয় এবং কিছু বই রয়েছে যা সহজে সংগ্রহও করা যায়না। হাতের কাছে এমন অবারিত সুবিধে আছে বলেই মনস্থির করেছি বই পড়া অব্যাহত রাখবো এবং প্রতি সপ্তাহে’ই বই নিয়ে পড়বো।

জিহাদ বাবু’র ‘দশ টাকায় একটি বই’ প্রকল্পটি স্কুল-কলেজ সহ সন্দ্বীপের পাঠক সমাজে চমৎকার সাড়া ফেলেছে যা অসংখ্য পাঠকের আলাপ আলোচনায় উঠে আসছে বারবার।