বিজ্ঞপ্তিসিলেট

“শাহপরানে মসজিদ ভেঙ্গে ভুমি দখলের চেষ্টা ” – প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও সবাইকে সত্যতা যাচাইয়ের আহ্ববান

বিজ্ঞপ্তিঃ অদ্য ২৫ মার্চ ২০১৯ইং তারিখ প্রকাশিত একটি অনলাইন এ “শাহপরানে মসজিদ ভেঙ্গে ভুমি দখলের চেষ্টা ” শিরোনামের খবরের প্রসঙ্গে আমি নি¤œ স্বাক্ষরকারী ডাঃ ফারুক উদ্দিনকে জরিয়ে অসত উদ্দেশ্যে মিথ্যা বানোয়াট মানহানিকর সংবাদ প্রকাশ করা হয়। আমি তা ঘৃনা ভরে প্রত্যক্ষান করে এর তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
আমি ডাঃ ফারুক উদ্দিন ২০১৪ সালে জেলা সিলেট থানা (শাহপরান র:) এর জে এল নং- ৭০, বি,এস ৬১ মৌজা বহর, এস,এ খতিয়ান ১. বি এস খতিয়া ৯১৫১, ডিপি ৭৩৭২, দাগ নং এস, এ ৪৫৬৫/৮, বি,এস ৯১২০ হইতে বর্নিত চৌহাদ্দা উত্তরে সরকারী গ্যাস লাইন, দক্ষিনে অত্র দাগের ভুমি, পূর্বে এস, এ দাগের অবশিষ্ঠ ভুমি, পশ্চিমে সরকারী সড়ক এর মধ্যভর্তি ৬০ শতক ভুমি জনৈক মুজিবুর রহমান, পিতা-মৃত রফিক আহমদ এর নিকট থেকে খরিদ করিয়া নামজারী করাইয়া ২০১৮ইং সাল পর্যন্ত খাজনা পরিশোধ করতঃ মাটি ভরাট করে পাকা দেয়াল নির্মান করে নিজের নামীয় সাইবোর্ড স্থাপন করে তদস্থলে আধা পাকা ও ১টি সেমি পাকা গৃহ নির্মান করে পাহারাদার নিয়োগ করিয়া এলাকার সর্বসাধারণের জ্ঞাত সারে ভোগ দখল করিয়া আসিতেছি।

ইদানিং কিছু দিন হইতে মুজিবুর রহমান, পিতা-মৃত ফজলু মিয়া, জসিম উদ্দিন, পিতা-মানিক মিয়া গং, কতিপয় সন্ত্রাসী আমার অজান্তে অসৎ উদ্দেশ্যে দখলের পায়তারায় লিপ্ত হয় এবং তারা আমার নিকট ২০,০০,০০০/- লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। গত ১৯/০৩/২০১৯ইং লোক সূত্রে খবর পাই মুজিবুর রহমান ডালিম, পিতা-মৃত ফজলু মিয়া, প্রায় ৩০ জন সন্ত্রাসী নিয়া আমার বর্নিত জায়গায় অনদিকার প্রবেশ করে আমার সাইবোর্ড ভেঙ্গে আমার ঘর ও দেয়ালে আমার লিখা নাম মুছিয়া তাদের পক্ষদের নাম লিখিয়াছে ও আমার নির্মিত পাকা ঘরের উপর মসর্জিদের মিনার সরূপ কিছু একটা নির্মানের চেষ্টা করিতেছে এবং আমি তা দেখিয়া বাঁধা দেই। পরবর্তীতে ২০/০৩/২০১৯ইং তারিখে শুক্রবার পূণরায় খবর পাই আমার তালাবদ্ধ ঘরের তালা ভাঙ্গিয়া ঘরে প্রবেশের চেষ্টা করিতেছে। তখন আমি ঘটনাস্থলে গিয়া তা প্রত্যক্ষ করে ঐদিন ২০/০৩/২০১৯ইং শাহপরান থানায় মুজিবুর রহমান ডালিম গং ও ৩০/৩৫ জনের বিরুদ্ধে ৭৯৯ নং জিডি এন্ট্রি করি। উক্ত জিডি এন্ট্রির সংবাদ পেয়ে মুজিবুর রহমান ডালিম আমাকে আপোষের প্রস্তাব দেয়। আমি সরল মনে বিশ্বাস করি এবং উক্ত জায়গায় নতুন গৃহ নির্মানের জন্য প্রচুর রড, সিমেন্ট নিয়া আমার ২টি ঘরের মধ্যে জমা করি।

কিন্তু গত ২২/০৩/২০১৯ইং তারিখে সংবাদ পাই মুজিবুর রহমান ডালিম প্রায় ৩০/৩৫ জন লোক আমার সত্য দখলিয় ভুমিতে অনধিকার প্রবেশ করে। বাউন্ডারী দেয়াল ভাঙ্গচুর করে। রক্ষিত সিমেন্ট, রড লোট করে নিয়া যাইতেছে। ও পাকা গৃহের রকম পরিবর্তনের চেষ্টা করিতেছে। সংবাদ পাইয়া ঘটনাস্থলে গিয়া মুজিবুর রহমান ডালিম ও হাফিজ উদ্দিন গং ৩০/৩৫ জন লোক নিয়ে আমার উক্ত ভুমিতে ত্রাসের রাজ্বত্য সৃষ্টি করে করিয়া আমার নিকট ২০,০০,০০০/- লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে এবং চাদা না দিলে আমাকে প্রাণে মারিয়া ফেলার হুমকি দেয়। তাৎকনিক আমি শাহপরান থানায় গিয়া অভিযোগ দায়ের করি। কিন্তু মুজিবুর রহমান ডালিম ও হাফিজ উদ্দিন নিজে না এসে তাদের প্রতিনিধির মাধ্যমে থানা কর্তৃপক্ষের নিকট (আপষ) সমঝতার প্রস্তাব দেয়।

আপোষ প্রস্তাতের কথা বলে অসৎ লোকের পরোচনায় পরোচিত হইয়া এই মিথ্যা সংবাদ প্ররিবেশন করে। নি¤œ লিখিত ব্যক্তিগন কখনো উক্ত ভুমির দখলে ছিল না। তারা অতি লাভের আশায় মসজিদকে পুজিঁ করে সাধারণ জনগণকে বোকা বানিয়ে সস্তা সমর্থন আদায় করার চেষ্টা করিতেছে। উল্লেখ্য মুজিবুর রাহমান ডালিম এর বিরুদ্ধে ইতিপূর্বে শাহপরান থানায় জি আর মামলা নং-৬৯/১৯ রুজ হইয়াছে যারা ধারা ১৪৩/৪৮৮/৪৪৭/৩৮৫/৩৮০/৪২৭/৫০৬ এর মাম্লা বিদ্যমান রয়েছে

বার্তা প্রেরক-
ডাঃ ফারুক উদ্দিন
মোবাঃ ০১৭১৩৩২৮৫৬৫

Show More