আজকের কাগজ

BANGLADESHI Latest Online News

ফের বন্যায় প্লাবিত তাহিরপুর হাওর বেস্টিত নিম্নাঞ্চল

1 min read

তাহিরপুর প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জে তাহিরপুর ভারি বর্ষণ ও নেমে পাহাড়ি ঢলে,উপজেলার হাওর বেস্টিত নিম্নাঞ্চলের ফের বন্যায় প্লাবিত হয়েছে ।

বিগত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল অব্যাহত থাকায় উপজেলার নিম্নাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

উপজেলার যাদুকাটা বৌলাই ও পাটলাই নদীর , পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।আজ বুধবার সরেজমিনে উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের, শ্রীপুর বাজার উজ্জলপুর, তরং নতুনহাটি,মন্দিয়াতা নতুনহাটি, জয়পুর ছিলানী তাহিরপুর, একাধিক গ্রাম ঘুরে এবং বিভিন্ন তথ্যসুত্রে জানাযায় উপজেলার হাওর বেস্টিত নিম্নাঞ্চলের অর্ধশতাধিক গ্রাম ও বিভিন্ন হাটবাজার ফের বন্যায় প্লাবিত হওয়ায়,এইসব এলাকার বেশির ভাগ মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে, জানাযায় তাদের মধ্যে কিছু সংখ্যক মানুষ বসতভিটা ছেড়ে উঁচু বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে, কেউ বা আবার নিজের বসতভিটের মেঝেতে চাটাইকরে ঝুঁকির মধ্যেই দিনাতিপাত করছে। এই উপজেলার নিম্নাঞ্চলের হাটবাজারের অধিকাংশ দোকানপাটে বন্যার পানি প্রবেশ হওয়ায় উঁচু স্থানে মালামাল রেখে কেনা-বেচা করতে দেখা যাচ্ছে, কেউবা আবার মালামাল অন্যত্রে রেখে দোকানপাট বন্ধ রেখেছে ।এবং বন্যায় কবলিত পানি বন্দি মানুষ গুলা। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ক্রয়ের জন্য ছোট ছোট ডিঙি নৌকা নিয়ে বাজারের ভিতরে প্রবেশ করে কেনাকাটা করছে।এছাড়াও বিভিন্ন তথ্যসুত্রে জানাযায় প্রবল বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে উপজেলার আনোয়ারপুর ব্রীজের পূর্বপাশ ও তাহিরপুর – সুনামগঞ্জ রাস্তার প্রায় ২শত মিটার রাস্তা ভাঙ্গন এবং তাহিরপুরের মুলসড়কটি পানির নিচে থাকায় সুনামগঞ্জ জেলা সদরের সাথে তাহিরপুরের সড়কপথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে এবং উপজেলার উজান এলাকার আমন ধানের প্রায় দুইশত একর জমির বীজতলা ও শাকসব্জীর ক্ষেত পানিতে ডোবে ব্যপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আমিরুল ইসলাম জানান তরং নয়াহাটি সহ একাধিক গ্রামের অধিকাংশ বসতভিটায় বন্যার পানি প্রবেশ করায়, কেউ কেউ অন্যের উঁচু বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে,কেউবা আবার নিজের বসতভিটে উঁচু করে চাটাইপেতে কোনভাবে দিনাতিপাত করছে। এভাবে আর দু-এক দিন পানি বৃদ্ধি হলে এই এলাকায় দুর্যোগ সৃষ্টি হবে।

শ্রীপুর বাজার ব্যবসায়ী ও তরুণ ছড়াকার মানিক মিয়া বলেন,মালামাল উঁচু স্থানে রেখে কোন ভাবে কেনা-বেচা করছি। এই ভাবে দুইএক দিন পানি বৃদ্ধি হলে এলাকায় দুর্যোগ সৃষ্টি হবে। তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান করুনা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল, উপজেলার বন্যা কবলিত গ্রাম শিক্ষা প্রতিষ্টান সহ বিভিন্ন বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করে গণমাধ্যম কে জানান, উপজেলার বন্যা কবলিত মানুষ গুলা খুবি কষ্টে দিনাতিপাত করছে, এছাড়াও তাহিরপুর- সুনামগঞ্জ সড়ক পথে একাধিক স্থানে ভাঙ্গন ও বন্যার পানিতে ডুবে যাওয়ায় জেলা সদরের সাথে তাহিরপুরের সড়কপথে যোগাযোগের ব্যবস্থা সাময়িক সময়ের জন্য বন্ধ রয়েছে,এতে করে জনজীবনে এসেছে চরম দুর্ভোগ।

এ ব্যাপারে বন্যা পপরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য উপজেলা উদ্ধার টিম প্রস্তুত রয়েছে। শুকনো খাবার, ঔষধ, পানি বিশুদ্ধ করন ট্যাবলেট, এমনকি বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র সহ সবকিছু প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়াও উপজেলার কর্মরত সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের কর্মস্থলে থাকা ও উপজেলায় মেডিক্যাল টিম গঠন করা আছে।