জেলার খবর

তাহিরপুরে মসজিদের ইমাম গৃহবধুকে ধর্ষণের চেষ্টায় থানা অভিযোগ,ইমাম পলাতক

তাহিরপুর প্রতিনিধিঃসুনামগঞ্জ তাহিরপুর উপজেলায় এক মসজিদের ইমামের বিরুদ্ধে গৃহবধূকে তার বসত ঘরে ঢুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে গৃহবধূর স্বামী নুর আলম মিয়া বাদি হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। এ রিপোর্ট লেখা পযর্ন্ত মসজিদের ইমামকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।এ ঘটনায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। গত শনিবার( ৩,আগস্ট) ভোর ৪টায় তাহিরপুর উপজেলা শ্রীপুর উত্তর ইইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ছিলানী তাহিরপুর এ ঘটনা ঘটে।অভিযোগের আলোকে জানাযায়, বিবাদী ময়মনসিংহ জেলার তারা কান্দি থানার বাঘেরগাতি গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে এমদাদুল হক (৩২) তিনি গত চার বছর যাবৎ,ছিলানী তাহিরপুর জামে মসজিদের ইমাম এর দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ভিকটিম ছানোয়ারা বেগম বাদী নুর আলমের স্ত্রী, তাদের ৯মাস বয়সী একটি পালিত পুত্রসন্তান রয়েছে।বাদী নুর আলম পেশায় মৎস্যজীবী, উনি স্ত্রী সন্তান রেখে ভোর আনুমানিক ৪টায় পার্শ্ববর্তী বনোয়ার হাওরে মাছ ধরতে গেলে, তাদের ঘরে কেউ না থাকার সুযোগে, বিবাদী এমদাদুল হক, তাদের বসতঘরের ভিতরে অনাধিকারে প্রবেশ করিয়া,এমদাদুল হক তাহার যৌন কামনা চরিতার্থ করার লক্ষে, ভিকটিমের বুক সহ শরীরের বিভিন্ন স্পর্শ কাতর যায়গায় হাত দিতে থাকে। ভিকটিম সজাগ হয়ে ডাক চিৎকার করিলে, আশেপাশের লোকজন বিবাদী এমদাদুল হককে, বাদী নুর আলমের বসত ঘরে হাতেনাতে আটক করে।পরবর্তী একই দিনে ভিকটিমের স্বামী নুর আলম আনুমানিক সকাল ৯টায় বাড়িতে এসে ঘটনার বিস্তারিত জেনে।স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের অবগত করলে উনারা একই দিনে সন্ধ্যা ৬টায় সালিশ বৈঠকে বসলে ঘটনার কোন সুরাহা না হওয়ায়। পুনরায় রবিবার (৪আগস্ট)সালিশ বৈঠক বসার সিদ্ধান্ত নেন। উপস্থিত গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বিবাদী এমদাদুল হককে একই গ্রামের মুজিবুর মিয়ার কাছে জিম্মায় প্রদান করেন। এবং মুজিবুর মিয়া বিবাদী এমদাদুল হককে যথাসময়ে সালিশ বৈঠকে হাজির করবেন বলে উপস্থিত গণ্যমান্য ব্যাক্তি দের আশ্বস্ত করেছেন বলেও অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান খসরুল আলম মোবাইল ফোনে কে অবগত করা হয়।পরবর্তী (৪,আগস্ট )সকালে পুনরায় সালিশ বৈঠকের জন্য এমদাদুল হক হাজির করার জন্য জিম্মাদার মুজিব মিয়া কে বলিলে উনি বলেন এমদাদুল হক কোথায় আছে উনি জানেন না। এমতাবস্থায় বিবাদী এমদাদুল হক মসজিদের ইমাম হওয়া সত্ত্বেও তাহার যৌন কামনা চরিতার্থ করার লক্ষে, নুর আলম মিয়ার স্ত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে এবং একই গ্রামের মৃত আসকন আলীর ছেলে মুজিবুর মিয়াকে(৪০ )কে অভিযুক্ত করে, এবং বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান ও গন্যমান্যদের অবগত করে,ভিকটিমের স্বামী নুর আলম বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দাখিল এ বিষয়ে তাহিরপুর থানা এ,এস আই আবু মুসা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন এ বিষয়ে ছিলানী তাহিরপুর গ্রামের নুর আলম বাদী হয়ে একটি অভিযোগ করেছে, বিষয়টি তদন্ত্র করার জন্য,এস,আই মোস্তফা কে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে,তদন্ত্রের জন্য ঘটনা স্থলে আজ যাবেন।

Show More