মধ্যনগরে সরকারের উন্নয়ন কাজে বাঁধাদিয়ে সংখ্যালঘু ব্যক্তিকে হুমকির প্রতিবাদে,প্রতিবাদ সভা

2

আহাম্মদ কবির মধ্যনগর দক্ষিণ বংশীকুন্ডা ইউনিয়নে সরকার ও এলাকাবাসীর উন্নয়ন কাজ কে কেন্দ্র করে, দক্ষিণ বংশীকুন্ডা ইউনিয়ন আওয়ামিলীগের একাংশের সভাপতি মোঃআব্দুর রাজ্জাকের মোলাই ফোনে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায় ও অসহায় পরিবারের কৃষ্ণধন নামের এক ব্যক্তিকে হুমকি দেন, বিষয়ে কৃষ্ণধন নিজের নিরাপত্তার জন্য গত ১৪,অক্টোবর মধ্যনগর থানায় একটি অভিযোগ করেন,

অভিযোগের আলোকে জানাযায়,কৃষ্ণধন মধ্যনগর থানার দক্ষিণ বংশীকুন্ডা ইউনিয়নের বাট্রা গ্রামের পক্ষে, গ্রামের পল্লী বিদ্যুৎ দ্রুত সংযোগের লক্ষ্যে সুনামগঞ্জ-১সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন এর বরাবর আবেদন প্রেরণের জন্য এলাকাবাসীর গণস্বাক্ষর নিতে গেলে কতিপয় দক্ষিণ বংশীকুন্ডা ইউনিয়ন আওয়ামিলীগের একাংশের সভাপতি ও প্রভাবশালী ব্যক্তি, আব্দুর রাজ্জাক গত( ১২,অক্টোবর) আনুমানিক ১০,১২ঘটিকার সময়,তাহার মোবাইল নম্বর ০১৭১৩৫৭১৬৯৯ হতে কৃষ্ণধনের মোবাই নাম্বার ০১৭৬৮৯৭৫৪২৮তে ফোন দিয়া কৃষ্ণধনকে গণস্বাক্ষর নিতে নিষেধ করেন এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন এছাড়াও কৃষ্ণধন কে বংশিকুন্ডা বাজারে কিংবা রাস্তাঘাটে কোথাও ফাইলে জিহবা কেটে ফেলবে এবং হাত-পা ভেঙে ফেলবে বলে হুমকি দেয়।

সংখ্যালঘু অসহায় পরিবারের কৃষ্ণধনের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও জিহবা কেটে ফেলার হুমকির এই ৫,৫৫ সেকেণ্ডের একটি অডিও রেকর্ড আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক মেসেঞ্জারে ভাইরাল হওয়ায় । ফেসবুক মেসেঞ্জারে এই অডিও রেকর্ডটি ভাইরাল হওয়ার পর থেকে বিভিন্ন ফেসবুক ব্যবহারকারীর স্ব স্ব ওয়ালে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে স্ট্যাটাস দিয়েছে।
এ নিয়ে তোলপাড় চলছে পুরো দক্ষিণ বংশীকুন্ডা সহ মধ্যনগর থানার বিভিন্ন স্থানে । ভাইরাল হওয়া অডিওটি শুনে সংখ্যালঘুর এই অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে বলে জানান স্থানীয় সচেতন মহল।
এদিকে আওয়ামীলীগের একজন প্রভাবশালী নেতার মুখে এমন আচরণ শুনে ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে সকল সম্প্রদায়ের মানুষ।আজ ১৫,অক্টোবর মধ্যনগর দক্ষিণ বংশীকুন্ডা ইউনিয়নের বংশিকুন্ডা বাজারে, আওয়ামিলীগ নেতা কর্তৃক সংখ্যালঘু অসহায় কৃষ্ণধনকে হুমকির প্রতিবাদে নিন্দা ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে ।
বাবু নিরঞ্জন সরকারের সভাপতিত্বে নিন্দা ও প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন,কৃষ্ণধন সরকার দক্ষিণ বংশীকুন্ডা ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলাম, দক্ষিণ বংশীকুন্ডা ইউনিয়ন আওয়ামিলীগের সাধারণ সম্পাদক সুরঞ্জন সরকার,দক্ষিণ বংশিকুন্ডা ইউনিয়ন কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন,স্থানীয় সুশীল সমাজ প্রতিনিধি মোঃ আনোয়ার হোসেন, স্থানীয় সুশীল সমাজ প্রতিনিধি শামীউল কিবরিয়া তালুকদার প্রমুখ, এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ বংশীকুন্ডা ইউনিয়নের বাট্রা, বংশিকুন্ডা, নিশ্চিন্তপুর, বাসাউরা সহ কয়েকটি গ্রামের সকল সম্প্রদায়ের প্রায় দুই শতাধিক জনসাধারণ।
উপস্থিত বক্তারা বলেন,জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশে একজন রাজনৈতিক নেতার কাছে একজন সংখ্যালঘু অসহায় পরিবারের ব্যক্তিকে সরকারের উন্নয়ন কাজে বাঁধা দিয়ে জিহবা কেটে ফেলা ও হাত-পা ভেঙে ফেলবে এমন হুমকি মোটেও কাম্য নয়।আমরা এই হুমকির তিব্র নিন্দা জানাই, সাথে সাথে এই সংখ্যালঘু অসহায় ব্যক্তির নিরাপত্তার জন্য প্রশাসনের প্রতি জোড়ালো দাবী জানাই।