তাহিরপুরে প্রতিমা বিসর্জ্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হল শারদীয় দুর্গোৎসব

3

আহাম্মদ কবির, প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে আজ শেষ হবে বাঙালি হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসব। সুনামগঞ্জ তাহিরপুর উপজেলার মণ্ডপে মণ্ডপে বেজে উঠেছে দেবী বিদায়ের সুর ।

বিজয়া দশমীর আনুষ্ঠানিকতা শেষ। এখন দেবী দুর্গাকে বিদায় জানাচ্ছেন ভক্তরা।দেবী বিদায়ের আগে মণ্ডপগুলোতে সিঁদুর খেলায় অংশ নেন ভক্তরা। দেবী বিসর্জনের মধ্য দিয়ে মা দুর্গা ঘোড়ায় চড়ে তার সন্তান কার্তিক, গণেশ, লক্ষ্মী, সরস্বতীসহ কৈলাসে স্বামীর গৃহে ফিরে যাবেন।

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাসে বোধনে অরুণ আলোর অঞ্জলি নিয়ে আনন্দময়ী মা উমাদেবীর আগমন ঘটে।টানা পাঁচদিন মৃন্ময়ীরুপে মণ্ডপ থেকে আজ ফিরে যাবেন কৈলাশে স্বামী শিবের সান্নিধ্যে দেবী বিসর্জনের পর সেখান থেকে শান্তিজল এনে তা রাখা হবে মঙ্গলঘটে, দুর্গা মায়ের সন্তানেরা তা ধারণ করবেন হৃদয়েও।সোমবার (৭ অক্টোবর) মহানবমীর সন্ধ্যায় আরতি শেষে দেবী দুর্গার পায়ে শেষ অঞ্জলি প্রদান করা হয়।

হিন্দু শাস্ত্র মতে, নবমী তিথিতে রাবণ বধের পর শ্রী রামচন্দ্র এই পূজা করেছিলেন। নীলকণ্ঠ ফুল, যজ্ঞের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয় নবমী বিহিত পূজা। নবমী পূজার মাধ্যমে মানবকুলে সম্পদলাভ হয়।

তাহিরপুর উপজেলা,শ্রী শ্রী দুর্গা মন্দির,শীতলী দেবী মন্দির,শ্রী শ্রী জয় দুর্গা যুব সংঘ নয়াবন্দ, সুর্য্যারগাও কালিবাড়ি পূজা মন্ডপ, তাহিরপুর রায়পাড়া কালী মন্দির পূজা মন্ডপ সহ ২৯টি পূজা মণ্ডপের মধ্য ২৮ মণ্ডপে আজ প্রতিমা বিসর্জ্জনের জন্য উপজেলার যাদুকাটা পাটলাই নদী সহ বিভিন্ন নদীতে পুকুরঘাটে নিয়ে প্রতিমা বিসর্জ্জন দিয়ে শেষ হল শারদীয় দুর্গোৎসব ।

এ ব্যাপারে তাহিরপুর উপজেলা পূজা উৎযাপন পরিষদের সভাপতি সুবাস পুরকায়স্থ বলেন তাহিরপুর উপজেলায় দু’একটা মণ্ডপে সামান্য কিছু ঝামেলা হলেও বাকিগুলাতে ২৭টি মণ্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব শান্তিপূর্ণ ভাবেই পালন করা হয়েছে উনি বলেন আজ প্রতিমা বিসর্জ্জন উপজেলার ২৯টি মণ্ডপের মধ্যে ২৮টি মণ্ডপে দেওয়া প্রায় শেষ হলেও ১টি মণ্ডপে আগামীকাল প্রতিমা বিসর্জ্জন দেওয়া হবে।