চৌদ্দগ্রামে সড়কের মাঝে বৈদ্যুতিক খুঁটি রেখেই নির্মাণ কাজ

4

এম এ আলমঃ,চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি:: হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকরা ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুর বাজার মসজিদ থেকে কুঞ্জশ্রীপুর সড়কের মাঝে দুটি বৈদ্যুতিক খুঁটি রেখেই সড়ক পাকাকরণের কাজ চলছে। এতে করে যে কোন মুহূর্তে দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী। সরজমিন দেখা গেছে, উপজেলার আলকরা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের লক্ষ্মীপুর বাজার সংলগ্ন মসজিদ থেকে কুঞ্জশ্রীপুর সড়কের মাঝে দুটি বৈদ্যুতিক খুঁটি রয়েছে। খুঁটিগুলো না সরিয়েই সড়কটি পাকাকরণের জন্য ইট বসানো হয়েছে। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসী। কারণ-সড়কের কাজ শেষে রাতের বেলায় সাইকেল, রিকশা, সিএনজি বেবি টেক্সিসহ ছোট যানবাহন ও বয়স্ক ব্যক্তিরা দুর্ঘটনা শিকার হতে পারে। তাই এলাকাবাসীর দাবি, বৈদ্যুতিক খুঁটিটি সরিয়ে যেন রাস্তা পাকাকরণের কাজ শেষ করা হয়।
সূত্রে জানা গেছে, সড়ক-মহাসড়কে বিপজ্জনক বৈদ্যুতিক খুঁটির ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে সংগ্রহ করে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন গত ১৩ই ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টে একটি রিট করেন। পরদিন বৃহস্পতিবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে রুলসহ সড়ক-মহাসড়কে থাকা বিপজ্জনক বৈদ্যুতিক খুঁটি দ্রুত সরানোর নির্দেশ দিয়েছেন। কিন্তু এরপরও সড়কটিতে থাকা দুটি বৈদ্যুতিক খুঁটি সরানোর জন্য কোনো ব্যবস্থা নেয়নি পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ। আলকরা ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক হেলাল বলেন, ‘আমি একাধিক বার বৈদ্যুতিক খুঁটিগুলো সরানোর জন্য আবেদন করেছি। কিন্তু পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ খুঁটিগুলো সরায়নি।’ এ ব্যাপারে পল্লী বিদ্যুতের গুণবতী অঞ্চলের এজিএম মো. আবদুর রহিম বলেন, আমি এখানে নতুন এসেছি। তবে খুঁটি সরানোর জন্য ইউপি চেয়ারম্যানের আবেদনের প্রেক্ষিতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। কর্তৃপক্ষের অনুমতি পেলেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
চৌদ্দগ্রামে সড়কের মাঝে বৈদ্যুতিক খুঁটি রেখেই নির্মাণ কাজ