৩৯ তম বিসিএস(স্বাস্থ্য) পরীক্ষায় দুই ভাই বোনের সাফল্য

1

এম. এ. আলম,চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধিঃ ৩৯তম বিসিএস(স্বাস্থ্য) লিখিত ও ভাইবা পরীক্ষায় একই সাথে উত্তীর্ণ হয়ে কৃতিত্বে স্বাক্ষর রেখেছে ডাঃ জাহানারা আরজু (মিশু) ও ডাঃ খালেদ মোঃ আবদুল্লাহ নামের দুই ভাই-বোন। তারা কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি -১ এর সদ্য অবসরপ্রাপ্ত এজিএম ও চৌদ্দগ্রাম উপজেলার বাতিসা ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামের ইঞ্জিনিয়ার নজরুল ইসলাম ফরাজী ও মিসেস শিরিন আক্তারের একমাত্র পুত্র ও কন্যা সন্তান এবং “সাপ্তাহিক চৌদ্দগ্রাম” পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক সিরাজুল ইসলাম ফরায়েজীর ভাতিজা-ভাতিজী। সদ্য ঘোষিত ৩৯ তম বিসিএস(স্বাস্থ্য) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ায় তারা সহকারি সার্জন পদে নিয়োগ লাভের জন্য সুপারিশ প্রাপ্ত হয়েছে।
ডাঃ জাহানারা আরজু (মিশু) ২০১২ সালে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ থেকে এবং ডাঃ খালেদ মোঃ আবদুল্লাহ ২০১৬ সালে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাশ করেন। জাহানারা আরজু (মিশু) ১৯৯৭ সালে প্রাথমিকে ও ২০০০ সালে অষ্টম শ্রেণীতে বৃত্তি লাভ করে। ২০০৩ সালে দেবীদ্বার মফিজ উদ্দিন পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি এবং ২০০৫ সালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় এ প্লাস পেয়ে উত্তীর্ণ হয়। ডাঃ মিশু বর্তমানে ঢাকা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (পিজি হাসপাতাল) পেডিয়াট্রিক নেফ্রোলজি(ফেইজ – বি) এর উপর এমডি করছে। চলতি বছরের ডিসেম্বরে তার পাঁচ বছরের এ কোর্স সম্পন্ন হবে। তার স্বামী কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও ফেনী সদর হাসপাতালের সাবেক মেডিকেল অফিসার ডাঃ সাইফুল ইসলাম সম্প্রতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এফসিপিএস ও এমডি কোর্স সম্পন্ন করেছে।
ডাঃ খালেদ মোঃ আবদুল্লাহ কুমিল্লা জিলা স্কুল থেকে ২০০২ সালে প্রাথমিকে এবং ২০০৫ সালে অষ্টম শ্রেণীতে বৃত্তি লাভ করে। ২০০৮ সালে একই স্কুল থেকে এসএসসি এবং ২০১০ সালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় এ প্লাস পেয়ে উত্তীর্ণ হয়। ডাঃ খালেদ বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজে ক্রিটিক্যাল কেয়ার মেডিসিন (ফেইজ -এ) এর উপর এমডি করছে। তারা দুই ভাইবোনই এই সফলতার জন্য মহান আল্লাহর শুকরিয়া আদায়সহ তাদের পিতা মাতার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে এবং নিজেদের আত্মীয়-স্বজন, শুভানুধ্যায়ী ও দেশবাসীর নিকট দোয়া কামনা করেছেন।