খাগড়াছড়িতে দেশের সকল নদী দখল ও দূষণ মুক্ত ও স্বাভাবিক প্রবাহ নিশ্চিত করার দাবিতে মানববন্ধন

2

দহেন বিকাশ ত্রিপুরা, খাগড়াছড়ি জেলা প্রতিনিধি:
খাগড়াছড়িতে গ্রীন ভয়েস (পরিবেশবাদী যুব সংগঠন)’র ১৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী দিবস উপলক্ষে চেঙ্গী নদী সহ সকল নদী দখল-দূষণ মুক্ত ও নদীর স্বাভাবিক গতি প্রবাহ নিশ্চিত করার দাবিতে মানববন্ধন করেছে গ্রীন ভয়েসের খাগড়াছড়ি জেলা শাখা।

১৯ এপ্রিল ২০১৯খ্রি. শুক্রবার সকাল ১০টায় খাগড়াছড়ি জেলা সদর শাপলা চত্ত্বর মোড়ে তিন পার্বত্য জেলার প্রধান সমন্বয়ক সাচিনু মারমার সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য দেন সংগঠনের সদস্য চারু বিকাশ ত্রিপুরা, নিশি ত্রিপুরা, কালাচিং মারমা প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বিআইডব্লিউটিএ এর গবেষণা অনুসারে খাগড়াছড়ি জেলার চেঙ্গী, মাইনি ও ফেনী নদীর দুই তীরে ব্যাপকভাবে তামাক চাষ, কীটনাশকের ব্যবহার, বিভিন্ন বর্জ্য ফেলার কারণে পানি দূষণ হচ্ছে। তাছাড়া বর্তমানে খাগড়াছড়ি জেলার মূলনদী চেঙ্গীর পানি দিনে দিনে সংকোচিত হচ্ছে উল্লেখ করে চেঙ্গী নদী দখল-দূষণ মুক্ত করে নদীর স্বাভাবিক গতি প্রবাহ নিশ্চিত করার দাবি জানান।

এছাড়াও গত ২০১৬সালে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে খাগড়াছড়ি পৌরসভা কর্তৃক আয়োজিত ‘‘পরিবেশ বান্ধব খাগড়াছড়ি পৌরসভাঃ নাগরিক ভাবনা” শীর্ষক সেমিনারে পঠিত ধারণা পত্রে যে সকল সুপারিশ মালা উপস্থাপন করা হয়েছে তা বাস্তবায়নের সুব্যবস্থা করার জন্য পৌরসভার মেয়র রফিকুল আলমের নিকট অনুরোধ জানান। তাদের সুপারিশমালা মধ্যে অন্যতম বিষয় ছিল- নির্দিষ্ট ডাম্পিং স্টেশন বা ময়লা ভাগার তৈরি, বর্জ্য কম্পোজ ও পুনঃ ব্যবহাপরযোগ্য করে সম্পদে পরিণত করা। কেননা খাগড়াছড়ি পৌরসভার নিজ্সব ডাম্পিং স্টেশন না থাকায় পৌরসভার বাইরে আলুটিলার পর্যটন এলাকায় শহরের প্রবেশপথে একটি ঢালু জায়গায় পৌরবর্জ্যগুলো ফেলা হয়। যা পর্যটকদের কাছে নেতিবাচকভাবে অর্ন্তনিহিত বার্তা চলে যায়। তাছাড়াও বর্জ্য পুড়ে বাতাসকে দূষিত করছে এবং নিচে গড়িয়ে দূষিত করছে ছড়া আর চেঙ্গী নদীকে। যার কারণে পৌরবাসীসহ চেঙ্গী নদীর উপর নির্ভরশীল পরিবেশ ও স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়তে হচ্ছে। আর অন্যদিকে শহরের বিভিন্ন এলাকায় দালানকোঠা, ঘরবাড়ি, দোকানপাঠ ও পাবলিক টয়লেটের পয়ঃনিষ্কাষনের বর্জ্যগুলো উন্মুক্তভাবে বিভিন্ন জায়গায় নালা, ছড়া ও খাগড়াছড়ি খালে ফেলা হয়। এছাড়াও গঞ্জপাড়া ব্রীজ সংলগ্ন কষাইখানার বর্জ্যগুলোও উন্মুক্তভাবে ফেলা হয়। ফলে বর্জ্য চেঙ্গী নদীতে পানি প্রবাহে মিশে নদীতে দূষিত করছে। তাই খাগড়াছড়িকে একটি পরিবেশবান্ধব ও পর্যটনবান্ধব জীববৈচিত্র্যময় করতে চেঙ্গী সদীসহ খাগড়াছড়ির সকল নদী দখল-দূষণ মুক্ত ও নদীর স্বাভাবিক গতি প্রবাহ নিশ্চিত করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।