সোনাগাজীর চরচান্দিয়ায় খামারে বিষ প্রয়োগ করে পাঁচ শতাধিক মুরগী নিধন

ফেনী থেকে মিজানুর রহমান: সোনাগাজীর চরচান্দিয়ায় মুরগীর খামারে বিষ প্রয়োগ করে পাঁচ শতাধিক মুরগী নিধন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ১৭এপ্রিল বুধবার রাতে মধ্যম চরছান্দিয়ার ভূঁঞা বাজার সংলগ্ন মহাজন বাড়ীর সঞ্জিত দাসের স্ত্রী ঝর্ণা দাসের মুরগী খামারে এই ঘটনা ঘটে।

থানায় দায়ের করা লিখিত অভিযোগ ও ক্ষতিগ্রস্ত সূত্রে জানা গেছে, দরিদ্র সঞ্জিত দাসের পরিবার আর্থিক সাবলম্বি হওয়ার আশায় নিজ বাড়ীতে একটি সেড নির্মান করে পোল্ট্রি মুরগীর খামার করে। বুধবার মধ্যরাতে খামারের পাশে কিছু লোকের আনাগোনা দেখে ঝর্ণা দাস এগিয়ে এলে তার উপস্থিতি টের পেয়ে ১০-১২ জন লোক দৌড়ে পালিয়ে যায়, এদের মধ্যে পাশ্ববর্তি কুমুদ বিহারী রায়, দিপু রায়, শেপালী রানী রায়, অমল চন্দ্র দাস কে তিনি চিনতে পারেন বলে পরদিন ১৮এপ্রিল বৃহস্পতিবার উল্লেখিত ব্যাক্তিদের নাম উল্লেখ করে আরো অজ্ঞাত ৫/৬ জনের নামে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন, (যার এসডিআর নং- ৪৬৭/১৯, ১৮/০৪/২০১৯ইং।

সরেজমিনে গেলে ঝর্ণা রানী দাস তার মালীকীয় মুরগী খামারে বিষ প্রয়োগ করে অমানবিক ভাবে মুরগী নিধনের বর্ণনা দিয়ে বলেন, আমার অভাবের সংসারে নুন আনতে পান্তা ফুরায়, আমার মত একটা গরীব মহিলার খামারে বিষ প্রয়োগ যারা করেছে আমি তাদের উপযুক্ত বিচার চাই।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে কুমোদ বিহারী রায় বলেন, পূর্ব শত্রুতার জের ধরেই আমার নামে তারা মিথ্যা মামলা করেছে, ঝর্ণা রানীর খামারে মুরগীর মৃত্যুর বিষয়ে আমি কিছুই জানিনা।

মামলার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সোনাগাজী মডেল থানার এ.এস.আই নাঈম অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন অভিযোগ তদন্তে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যাবো।

সংবাদকর্মি নিয়োগ চলছেঃ-

দেশের সকল জেলা উপজেলাইয় সংবাদকর্মি নিয়োগ চলছে । আমাদের সাথে কাজ করতে সরাসরি যোগাযুগ করুন ০১৭১১০০০২১৪