জবানবন্দি দিলেন ঢাবির ছাত্রী

7

অনলাইন ডেস্কঃ রাজধানীর কুর্মিটোলায় ধর্ষণের ঘটনায় আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রী। শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ইয়াসমিন আরা ফৌজদারি কার্যবিধির ২২ ধারায় ভিকটিমের এ জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

আদালত সূত্র বলছে, মামলার তদন্ত সংস্থা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) ওই ছাত্রীকে আদালতে হাজির করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ২২ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড করার আবেদন করে। আদালত অনুমতি দিলে, ওই ছাত্রী সেদিন যা যা ঘটেছিল তা সবিস্তারে বলেন।

জবানবন্দি দেয়ার পর আদালত ভিকটিমকে তার বাবার জিম্মায় দেন।

ধর্ষণের ঘটনায় ৬ জানুয়ারি ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা করেন।
মামলার এজাহারে বলা হয়, ২১ বছর বয়সী ওই ভিকটিম ঢাবির সমাজবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি ঢাবির রোকেয়া হলে থাকেন।

৫ জানুয়ারি সন্ধ্যা ৫টা ৪০ মিনিটের দিকে তার বান্ধবীর বাসায় যাওয়ার উদ্দেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে রওনা হন তিনি। রাত ৭টার দিকে বাসটি ক্যান্টনমেন্ট থানাধীন কুর্মিটোলা বাসস্ট্যান্ডে থামে।

তখন ওই শিক্ষার্থী বাস থেকে নেমে ফুটপাত দিয়ে ৪০ থেকে ৫০ গজ শেওড়ার দিকে হেঁটে আর্মি গলফক্লাব মাঠ সংলগ্ন স্থানে পৌঁছালে পিছন দিক থেকে অজ্ঞাতনামা একজন এসে তাকে ফুটপাতের পাশে মাটিতে ফেলে দেয় এবং তার গলা চেপে ধরে।

মেয়েটি অজ্ঞান হলে পড়লে ওই যুবক তাকে ধর্ষণ করে। পরে মেয়েটি কিছুটা সুস্থ হলে ওই যুবক তাকে মারধর করে এবং বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখায়। ওই যুবক (আসামি) মেয়েটির (ভিকটিম) কাছে বিভিন্ন কথা জিজ্ঞেস করে।

পরে আসামি মেয়েটির কাছ থেকে একটি মোবাইল ফোন, হাতঘড়ি, ব্যাগ ও নগদ দুই হাজার টাকা নিয়ে নেয়। এক পর্যায়ে মেয়েটি দৌড়ে রিকশা করে তার বান্ধবীর বাসায় যান।

এরপর তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। চিকিৎসা নিয়ে তিনি বৃহস্পতিবার হাসপাতাল ছেড়েছেন।

বৃহস্পতিবার এই ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার মজনুকে সাত দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেন ঢাকার সিএমএম আদালত। আসামি মজনু ডিবি হেফাজতে রয়েছেন।

বিএনএনিউজ২৪.কম/এইচ.এম।