ভারতের এনআরসি আতঙ্কে সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকছে অনেক নারী-পুরুষ

10

জাতীয় ডেস্ক: ভারতে জাতীয় নাগরিক পুঞ্জি বা এনআরসি আতঙ্কে ঝিনাইদহের মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে বাংলাদেশে ঢুকছে অনেকে। চলতি মাসে আটক করা হয়েছে ২০৩ জনকে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী জানিয়েছে, অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে আটককৃতদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ভারতের এনআরসি বা জাতীয় নাগরিকপঞ্জিতে নাগরিকত্ব হারানোর শঙ্কায় ঝিনাইদহের মহেশপুরের জুলুলী, পলিয়ানপুর, শ্যামকুড়, বাঘাডাঙ্গা সীমান্ত দিয়ে ঢুকছে শত শত নারী-পুরুষ। গত দুই সপ্তাহে এমন দুই শতাধিক অনুপ্রবেশকারীকে আটক করেছে বিজিবি। এর মধ্যে ৬৪ জন পুরুষ, ৭৫ নারী ও ৬৪ শিশু রয়েছে।

তবে আটককৃতদের দাবি, তারা বাংলাদেশেরই নাগরিক। পাসপোর্ট ছাড়া ভারতে গিয়ে দীর্ঘদিন বসবাস করেছেন। এনআরসি আতঙ্ক ও স্থানীয়দের নির্যাতনের ভয়ে দেশে চলে এসেছেন।

স্থানীয়রা জানান, রাতের আধারে অরক্ষিত সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশ করছে অনেকে। ঝিনাইদহ মানবাধিকার বাস্তবায়ন কমিটির মুখপাত্র আমিনুর রহমান টুকু জানান, অনুপ্রবেশকারীদের অনেকের পূর্বপুরুষ সম্পত্তি বিক্রি করে ভারতে গিয়েছিলেন। এরা ফিরে এসে কোনো কর্মসংস্থান না পেয়ে জড়িয়ে পড়তে পারেন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে।

ঝিনাইদহ মহেশপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রাশেদুল আলম জানান, গত কিছুদিন যাবত বেশ কিছু লোক ভারত থেকে অনুপ্রবেশ করেছে। বিজিবি তাদের আটকের পর থানায় হস্তান্তর করে। পরে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলে পাঠানো হয়েছে।

আটককৃতদের বেশিরভাগের পৈত্রিক বাড়ি বাগেরহাট ও খুলনার বিভিন্ন এলাকায়। ঝিনাইদহে ৭০ কিলোমিটার সীমান্তের মধ্যে ১০ কিলোমিটার এলাকায় কোনো কাঁটাতারের বেড়া নেই।

পিবিএ/বিএইচ