গুজব রোধে বিধিমালা তৈরি হচ্ছে-তথ্যমন্ত্রী

2

অনলাইন ডেস্কঃ উন্নত দেশের মতো বাংলাদেশেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভ্রান্তি ছড়ালে সার্ভিস প্রোভাইডারের বিরুদ্ধে জরিমানার বিধিমালা তৈরি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। সারা বিশ্বে সোশ্যাল মিডিয়ায় মিথ্যা তথ্যে বিভ্রান্তি, চরিত্রহনন ও গুজব ছড়ানো হচ্ছে-জানিয়ে তিনি বলেন, যা একটি বড় সমস্যা।

শুক্রবার (২২ নভেম্বর) চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে বিশ্ব টেলিভিশন দিবস উপলক্ষে এক গোলটেবিল বৈঠকে হাছান মাহমুদ আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরে দেশে বেসরকারি টিভির যাত্রা শুরু হয় । ১১টি চ্যানেল সম্প্রচারে আসার অপেক্ষায় আছে। এ খাতে প্রত্যক্ষ পরোক্ষভাবে এক লাখ মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে । টিভি নতুন প্রজন্মের মনন তৈরিতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। কৃষ্টি সংস্কৃতি লালনের পাশাপাশি দেশ জাতি গঠনে ভূমিকা রাখতে হবে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ক্যাবল অপারেটরদের জন্য টিভিগুলোর সিরিয়াল করে দেয়া হয়েছে। ছয় দশকে ভারতে কখনো বাংলাদেশের টেলিভিশন দেখা যেত না। টেলিভিশন চ্যানেলের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় বিজ্ঞাপন ভাগ হয়ে যাচ্ছে। ৪শ থেকে ৫শ কোটি টাকার বিজ্ঞাপন বিদেশে চলে যাচ্ছে। সম্প্রচার মাধ্যম পুরোপুরি ডিজিটালাইজড হলে বিদেশেও বিজ্ঞাপন দেখানো যাবে। সামাজিক মাধ্যমে বিজ্ঞাপনে কর আরোপের জন্য এনবিআরকে চিঠি দেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন,টেলিভিশনে কর্মরত বেশির ভাগই মেধাবী। ‘টেলিভিশনে কর্মরত সাংবাদিকদের আইনি সুরক্ষা দেয়া প্রয়োজন। যাঁরা ওয়েজ বোর্ডের আওতাধীন প্রিন্ট মাধ্যমে কাজ করেন, তাঁদের জন্য আইনি সুরক্ষা আছে। কিন্তু টেলিভিশনের ক্ষেত্রে আইনি সুরক্ষা এখন পর্যন্ত নেই। সরকার এ বিষয়ে কাজ করছে।

বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের মহাব্যবস্থাপক নিতাই কুমার ভট্টাচার্যের সভাপতিত্বে আলোচনায় বিমেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান।এ আলোচনার আয়োজন করে বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্র, চট্টগ্রাম টিভি জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন ও টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন ।

বিএনএনিউজ২৪.কম/আর করিম চৌধুরী,এস জি নবী