শ্রমিকরা পারলে এমপিরা কেন নয় : এমপি নাদিয়া

3

অনলাইন ডেস্কঃ ’কমবেতনে একজন সাধারণ শ্রমিক সংসার চালাতে পারলে একজন সংসদ সদস্য কেন পারবেন না’- এটি স্রেফ বক্তব্য নয়। বাস্তবায়ন করেও দেখাচ্ছেন বৃটিশ এমপি নাদিয়া হুইটমোর। বয়স মাত্র ২৩। এমপি হিসেবে বেতন পান ৮০ হাজার পাউন্ড। নাদিয়া ঘোষণা দিয়েছেন বেতনের ৪৫ হাজার পাউন্ডই তিনি দান করে দেবেন এলাকার উন্নয়নে। শুধু সংসার চালানোর টাকাটাই তিনি রাখবেন। -বিবিসি

নাদিয়া হুইটমোর বিবিসিকে জানান, ‘একজন সাধারণ শ্রমিক গড়ে যেই বেতন পান, আমার বেতন থেকে ততটুকুই গ্রহণ করব আমি। বাকি অর্থ আমি আমার এলাকার উন্নয়নে ব্যয় করব’। ওই অর্থ দান, তহবিল গঠন ও তৃণমূল পর্যায়ের প্রকল্প তৈরির মতো কাজগুলোতে ব্যয় করা হবে বলে জানান নাদিয়া।

এলাকার উন্নয়নে নিজের বেতন উৎসর্গ করায় ইতিমধ্যে বেশ আলোচিত হয় নাদিয়া। ব্রিটিশ সংসদের সর্বকনিষ্ঠ এই সদস্যকে নির্বাচনের আগে তেমন কেউ চিনত না।

আর বর্তমানে শুধু নটিংহ্যাম ইস্ট আসনের বাসিন্দাদের মুখেই নয়, নাদিয়ার নাম ইংল্যান্ডের অনেক রাজ্যেই চর্চিত হচ্ছে। ব্রিটিশ গণমাধ্যমগুলোতেও তাকে নিয়ে খবর প্রকাশ হচ্ছে। অনেকেই হতবাক হয়েছেন, এলাকার উন্নয়নে অর্থ ব্যয়ে যেখানে সরকার রয়েছে, সেখানে এই সংসদ সদস্যের বেতনের টাকা খরচের কি প্রয়োজন? তিনি কেন এমনটি করছেন? এটি কি শুধুই সমাজসেবা?

এর জবাবে নাদিয়া হুইটমোর জানিয়েছেন, শুধু সমাজসেবাই উদ্দেশ্য নয়; তিনি মনে করেন ইংল্যান্ডে শিক্ষক, সেবিকা ও দমকলকর্মীরা তাদের দায়িত্বের চেয়ে কম বেতন পান। তাদের বেতন আরও বাড়ানো উচিত।

তিনি বলেন, যতক্ষণ না পর্যন্ত শিক্ষক, সেবিকা ও দমকলকর্মীদের এক দফা বেতন বৃদ্ধি না হচ্ছে, আমিও আমার বর্ধিত বেতন গ্রহণ করব না। ওই টাকা সমাজের কাজে লাগিয়ে দেব। আমি আশা করছি যে, আমার এ সিদ্ধান্ত ব্রিটেনে বেতমবৈষম্যের বিষয়টিকে সামনে আনবে, আর এর সুরাহা হবে।

এ ছাড়া অর্থনৈতিক মন্দার পর সম্প্রতি ব্রিটেনে যেসব সাধারণ চাকরিজীবীকে ছাঁটাই করা হয়েছে, তাদের পাশে দাঁড়ানোর উদ্দেশ্য থেকেও এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানান নাদিয়া।

অনেক ব্রিটিশ রাজনীতিবিদ কটাক্ষ করতেও ছাড়েননি। লেবার পার্টির সাবেক সাংসদ মেলানি অন টুইট করে নাদিয়া হুইটমোরকে ব্যঙ্গ করে লিখেছেন– লোক দেখানো রাজনীতি এখনও চলছে। গুরুত্বপূর্ণ একটি দায়িত্বের জন্য ঠিকভাবে বেতন পেলেও যেন কর্মজীবী শ্রেণির সহ্য হয় না।

হুইটমোর বলেন, সাংসদদের কাজ ছোট করে দেখানোর কোনো প্রশ্নই আসে না। কিন্তু এই একই অঙ্কের অর্থে একজন দমকলকর্মী, সেবিকা বা শিক্ষক স্বাচ্ছন্দ্যে জীবন চালাতে পারেন। তা হলে সাংসদ কেন পারবেন না?

তিনি আরও বলেন, এমন সিদ্ধান্তের পর আমি এখন পর্যন্ত মানুষের কাছে ব্যাপক ইতিবাচক সাড়া পেয়েছি। বর্তমান ব্রিটিশ পার্লামেন্টে তিনিই সর্বকনিষ্ঠ সদস্য। ইংলিশ মিডল্যান্ডসের নটিংহ্যাম ইস্ট আসনে লেবার পার্টির থেকে নির্বাচিত হয়েছেন নাদিয়া। কৈশোরেই রাজনীতিতে যোগ দেন তিনি। একসময় বিদ্বেষের শিকার হওয়া ভুক্তভোগীদের সহায়তা প্রদানের কাজ করতেন তিনি। আইন বিষয়ে পড়াশোনা করেছেন নাদিয়া।

সূত্র: বিবিসি