রয়টার্সের দুই সাংবাদিক মুক্ত

2

আন্তর্জাতিক :: রোহিঙ্গা গণহত্যার সংবাদ প্রকাশ করায় সাত বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত রয়টার্সের দুই সাংবাদিকে মুক্তি দিয়েছে মিয়ানমার সরকার।

মিয়ানমারে রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা আইন ভাঙার অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছিল | রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, রাজধানী ইয়াংগনের একটি কারাগার থেকে মঙ্গলবার সকালে মুক্ত হয়ে বেরিয়ে আসেন সাংবাদিক ওয়া লোন (৩২) ও কিয়াও সো ও (২৮)।রোহিঙ্গা নিপীড়নের তথ্য সংগ্রহের সময় গ্রেপ্তার এই দুই সাংবাদিক বরাবরই নিজেদের নির্দোষ দাবি করে এসেছেন।তাদের মুক্তির দিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সব দাবি মিয়ানমার সরকার এতদিন উপেক্ষা করে এসেছে।

মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা গার্ডিয়ানও এ খবর নিশ্চিত করেছে।ইনসিন কারাগারের প্রধান জাও জাও নিশ্চিত করেছেন মঙ্গলবার সাংবাদিক ওয়া লোন এবং কিয়াও সো ওকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে।মুক্তির পর কয়েক মিনিট পর ওয়া লোন বলেন, ‘আমি সত্যিই আমার পরিবার এবং সহকর্মীদের দেখতে পেরে খুশি এবং উত্তেজিত। আমি আমার নিউজরুমে ফিরে যেতে আর অপেক্ষা করতে পারছি না।’রয়টার্সের প্রধান সম্পাদক স্টিফেন জে অ্যাডলার বলেন, আমি অত্যন্ত আনন্দিত যে, মিয়ানমার আমাদের সাহসী সাংবাদিকদের মুক্তি দিয়েছে।

জজ আদালত রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে সাত বছরের সাজা দেওয়ার পর হাই কোর্ট এবং আপিল বিভাগেও তা বহাল থাকে।
আপিল বিভাগের ওই রায় আসার মাত্র দুই সপ্তাহের মাথায় দুই সাংবাদিকের মুক্তির খবর এল।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রতিবছর বর্ষবরণের মওসুমে মিয়ানমারে প্রেসিডেন্টের ক্ষমায় বিপুল সংখ্যক বন্দিকে মুক্তি দেওয়া হয়। এবছর সেই প্রক্রিয়া শুরু হয় এপ্রিল থেকে।এর আওতায় কয়েক হাজার বন্দির সঙ্গে সাংবাদিক ওয়া লোন ও কিয়াও সোকেও মিয়ানমার সরকার মুক্তি দিয়েছে।