বেনাপোল কাস্টমস অফিসের লকার ভেঙ্গে সোনা-ডলার চুরি

1

অনলাইন ডেস্কঃ বেনাপোল কাস্টমসের নিরাপদ গোপনীয় লকার ভেঙ্গে সোনা, ডলারসহ মূল্যবান পণ্যসামগ্রী নিয়ে গেছে চোরেরা। রোববার সরকারি ছুটি থাকায় অফিস বন্ধ ছিল। সোমবার (১১ নভেম্বর) অফিস খুললে বিষয়টি ধরা পড়ে।

ঘটনা তদন্তে যুগ্ম-কমিশনার শহীদুল ইসলামকে প্রধান করে ৫ সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া পোর্ট থানাসহ র্যারব, ডিবি, সিআইডি (ক্রাইম সিন) ও পিবিআই ঘটনাস্থলে তদন্ত কাজ শুরু করেছে।

বেনাপোল কাস্টম হাউজের যুগ্ম কমিশনার শহিদুল ইসলাম বলেন, কি পরিমান অর্থ সম্পদ খোয়া গেছে এটা এই মুহূর্তে নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। খতিয়ান এর হিসাব মিলিয়ে আমরা বিস্তারিত জানাতে পারব।

এদিকে সোমবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে দায়িত্বে অবহেলায় বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার ভোল্টের দায়িত্বে থাকা সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা সাহাবুল সর্দার ও ৪ নিরাপত্তাকর্মীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

কাস্টমস সূত্র জানায়, কাস্টমস হাউসের পুরনো ভবনের দ্বিতীয় তলায় গোপনীয় কক্ষটি ছিল। সেখানে লকারে কাস্টমস, কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা, বিজিবি ও পুলিশের উদ্ধারকৃত স্বর্ণ, ডলার বৈদেশিক মুদ্রা, কষ্টি পাথরসহ মূল্যবান দলিলাদি রাখা হতো। চোরেরা প্রবেশের পূর্বে সিসি ক্যামেরার সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। তালা ও লোহার লকার ভেঙে বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ, ডলার ও টাকাসহ বিভিন্ন ধরনের মূল্যবান পণ্য নিয়ে যায় চোরেরা।

বেনাপোল কাস্টম হাউসের কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরী জানান, একটি চক্র কাস্টমসকে বিব্রত অবস্থায় ফেলতে একাজের সাথে জড়িত থাকতে পারে।

বিএনএনিউজ২৪.কম/ হাসান মুন্না।